একসঙ্গে ২৫ বছর কাটিয়ে দিলেন ওমর সানী-মৌসুমী

বাংলা চলচ্চিত্রের আদর্শ তারকা দম্পতিদের মধ্যে অন্যতম হলেন ওমর সানী-মৌসুমী। আজ থেকে ২৫ বছর আগে ২ আগস্ট দু’জন ভালোবেসে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন।

পরবর্তীতে তাদের ঘর আলোকিত করে জন্ম নেয় দুই সন্তান ফারদিন ও ফাইজাহ। কিছুদিনে আগে ওমর সানী মৌসুমী তাদের ছেলে ফারদিনকে বিয়ে দিয়েছেন। পুত্র বধুকে নিয়ে বেশ সুখে আছেন সানী-মৌসুমী দম্পতি।

বিবাহিত জীবনের ২৫ বছর অর্থাৎ রজত জয়ন্তী পেরিয়ে আজ ওমর সানী-মৌসুমী পা রাখছেন তাদের বিবাহিত জীবনের ২৬ বছরে।

এই প্রসঙ্গে ওমর সানী বলেন, আলহামদুলিল্লাহ, মহান আল্লাহ সব মিলিয়ে আমাদের বেশ ভালো রেখেছেন, সুস্থ রেখেছেন। আমি আর মৌসুমী বেশ সুখে আছি সব মিলিয়ে।

আমাদের দুই সন্তান ফারদিন, ফাইজাহ ওরা দু’জনেই আমাদের আদর্শে মানুষ হচ্ছে, এটাই আসলে জীবনের সবচেয়ে বড় সুখ। ফারদিন জীবনকে বুঝতে শিখেছে-বাবা হিসেবে এটাইতো আমার চাওয়া ছিলো। শুধু চাইবো বাকীটা জীবন যেন ভাই বোন সুখে দুঃখে একসঙ্গে কাটিয়ে দিতে পারেন।

আর আমি-মৌসুমী যেন সেই সুন্দর সময়টাই সারাজীবন উপভোগ করে যেতে পারি। অবশ্যই দোয়া করি আমার বৌ’মার জন্যও। অনেক লক্ষী মেয়ে আমার পুত্রবধূ আয়েশা। তার জন্য দোয়া চাই সকলের কাছে।

প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী বলেন, দেখতে দেখতে চোখের পলকে জীবন থেকে এতোটা বছর পেরিয়ে গেছে-ভাবলেই শিহরিত হই। আমার বাবার মৃত্যুর পর সানীই আমাদের পরিবারের একমাত্র অভিভাবক।

আমাদের পুরো পরিবারটিকে আগলে রেখেছে সানী। সত্যিই সানীর মতো মানুষ জীবনে পাওয়া-এটা আল্লাহর বিশেষ রহমত। আমি সবসময়ই আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করি যে তিনি আমাকে সানীর মতো সুন্দর মনের, বড় মনের একজন মানুষকে আমার জীবনসঙ্গী হিসেবে উপহার দিয়েছেন।

আর আমার দুই সন্তান আমার পৃথিবী। তাদের নিয়ে ভালো আছি-আলহামদুলিল্লাহ। বাকীটা জীবন সুখে-দুঃখে আনন্দে একসঙ্গে কাটিয়ে দিতে চাই। আমাদের জন্য দোয়া করবেন যেন আমরা সুস্থ থাকি, ভালো থাকি।

উল্লেখ্য, ওমর সানী-মৌসুমী’র প্রথম সিনেমা ছিলো ‘দোলা’। এরপর তাদের দু’জনকে ‘আত্ব অহংকার’, ‘প্রথম
প্রেম’, ‘মুক্তির সংগ্রাম’, ‘হারানো প্রেম’, ‘গরীবের রানী’, ‘প্রিয় তুমি’, ‘সুখের স্বর্গ’, ‘মিথ্যা অহংকার’, ‘ঘাত প্রতিঘাত’, ‘লজ্জা’, ‘কথা দাও’, ‘স্নেহের বাঁধন’সহ আরো বেশকিছু সিনেমায় একসঙ্গে অভিনয়ে দেখা যায়, জুটিবদ্ধ হয়ে।