মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী, পুরো শহর ফাঁকা

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক সচেতনতা ও দূরত্ব সৃষ্টিতে খুলনায় বেসাময়িক প্রশাসনকে সহযোগিতা দিতে মাঠে নেমেছে সেনা সদস্যরা। আজ ২৫ মার্চ বুধবার দুপুরের পর থেকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে খুলনা মহানগরীসহ জেলার সড়ক ও অলিগলিতে টহল শুরু করে সেনা সদস্যরা। এতে নগরীর অধিকাংশ বিপনীবিতান, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। তাছাড়া মূল সড়কগুলোতে সাধারণ মানুষের চলাচল কমে গেছে।

এ ব্যাপারে খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন জানান, বুধবার দুপুর থেকে সেনাবাহিনীর ৬ প্লাটুন সদস্য মাঠে নেমেছে। পরবর্তীতে প্রয়োজন হলে আরো সেনা সদস্য মাঠে নামানো হবে। গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত প্রশাসন ও সশস্ত্র বাহিনীর কর্মপদ্ধতি নির্ধারণ সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারা মাঠে কাজ করছেন।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি এবং সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টিতে মহানগরীর ময়লাপোতা, রূপসা স্ট্যান্ড রোড, ডিসি অফিস, ডাকবাংলো মোড়, নিরালা, গল্লামারী এলাকাসহ বিভিন্ন স্থানে সেনাবাহিনীর সদস্যদের হ্যান্ড মাইকে মাইকিং করতে দেখা যায়।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার রাতে জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও গলাব্যাথাসহ করোনা লক্ষণ থাকায় খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের এক সদস্যকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এই পুলিশ সদস্যের সাথে তার বাবাকেও পর্যবেক্ষণ করা হবে। তিনি তার ছেলেকে মাগুরার বাড়ি থেকে খুলনায় নিয়ে আসেন।

এ ব্যাপারে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এটি এম মঞ্জুর মোর্শেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘তাদেরর রক্ত পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হবে।’