প্রতি শনিবার রোগী দেখেন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী!

বৃহস্পতিবার একটি প্রতিবেদনে ফ্রান্সের সংবাদ সংস্থা এএফপি জানায়, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী হয়েও প্রতি সপ্তাহের শনিবার রোগী দেখেন লোটে শেরিং। এমনকি বৃহস্পতিবার সকালে শিক্ষানবিস ও চিকিৎসকদেরকে চিকিৎসা বিষয়ক পরামর্শ দেন তিনি। আর ছুটির দিন রোববার সময় দেন পরিবারকে।

প্রধানমন্ত্রী শেরিং বলেন, দেশ পরিচালনার মতো কঠিন কাজের চাপ থেকে নিজেকে একটু হলেও মুক্ত রাখার জন্য সপ্তাহের এই দিনে রোগীদেরকে সেবা করার মাধ্যমে সময় কাটানোর চেষ্টা করি।

শেরিং বলেন, কিছু মানুষ গলফ খেলে, কিছু মানুষ আর্চারি খেলে সময় কাটায়। আর আমি অস্ত্রোপচার করি। আমি সপ্তাহের শেষ দিনটি শুধু এখানেই কাটাই।

প্রধানমন্ত্রী যখন হাসপাতালে থাকেন, তখন কেউ ইতস্তত বোধ করে না। কারণ তিনি ফ্যাডেড ল্যাব কোট ও ক্রকস পরে পুরোদস্তুর চিকিৎসকের বেশে ব্যস্ত করিডোরগুলোর একটি থেকে আরেকটিতে হেঁটে যান।

কোনও এক শনিবার ভুটানের জিগমে দর্জি ওয়াংচুক ন্যাশনাল রেফারেল হাসপাতালে শেরিংয়ের একটি সফল অস্ত্রোপচারের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে ফ্রান্সভিত্তিক সংবাদ সংস্থাটিতে প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে।

উল্লেখ্য ২০০৮ সালে দেশটিতে রাজতন্ত্রের অবসানের পর গত বছর অনুষ্ঠিত তৃতীয় গণতান্ত্রিক নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন শেরিং।

বাংলাদেশের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের সাবেক ছাত্র হলেন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করা শেরিং ২০১৩ সালে তার রাজনৈতিক জীবন শুরু করেন।