মায়ের থাপ্পড় খেয়ে সবাইকে কাঁদাল আদরের মেয়ে

মায়ের গালমন্দ ও থাপ্পড়ের আঘাত সইতে পারল না আদরের মেয়ে দিপা। সবার অগোচরে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে পুরো পরিবারকে চোখের জলে ভাসিয়েছে। সোমবার দুপুরে শেরপুর সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নের ভাতশালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
দিপা ঐ গ্রামের ইসমাইল হোসেন টিটুর মেয়ে ও পাশের সাপমারী গ্রামের নতুনকুঁড়ি কিন্ডারগার্ডেন স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী।

স্বজনরা জানান, তিন ভাই-বোনের মধ্যে দিপা সবার ছোট। আজ সকালে মা লিপি বেগম দিপাকে স্কুলে যেতে বলে। এ সময় স্কুলের বেতন পরিশোধ না করলে সে (দিপা) স্কুলে যাবে না বলে মা লিপি বেগমকে জানায়। এ ঘটনায় মা ক্ষুব্ধ হয়ে দিপাকে গালমন্দ ও একটি থাপ্পড় দেয়। পরে দুপুরে দিপা সবার অগোচরে তাদের গোয়াল ঘরে গিয়ে গলায় ফাঁস দেয়।

এ ঘটনা বাড়ির অন্যদের নজরে এলে দিপাকে উদ্ধার করে স্থানীয় ভাতশালা এলাকার জিনোম হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ সময় চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ওসি (তদন্ত) বন্দে আলী মিয়া জানান, স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঐ ঘটনায় পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।